5:57 am - Monday October 22, 2018

টাইব্রেকারে ইতিহাস গড়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ড

রাশিয়া ফুটবল বিশ্বকাপ চলছে। এরি মধ্যে ১ম পব,২য় পর্বের খেলা শেষ হয়ে গেছে গতকাল ।বিশ্বকাপ শুরু আগেই যেন শেষ হয়ে গেল বড় বড় দল গুলোর লড়াই। জার্মানি, স্পেন, আর্জেন্টিনা ও পর্তুগাল মতো দল গুলে বিদায় নিতে হয়েছে শেষ ষোল এবং ১ম পর্ব থেকেই।তবে বিদায় নিল না ইংল্যান্ড ভাগ্যে যেন তাদের পক্ষে কথা বলল।

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের জন্য টাইব্রেকার শব্দটা অপায়া। আগের তিনবার টাইব্রেকারের মুখোমুখি হয়ে তিনবারই হেরেছে ইংলিশরা। টাইব্রেকারে সবচেয়ে বেশি মিস এই দলটির। অবশেষে সেই টাইব্রেকার জুজু জয় করল ব্রিটিশরা। এরিক ডায়ারের শটটি জালে জড়ানোর সাথে সাথে বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো টাইব্রেকার জয় করে কোয়ার্টার ফাইনালে হ্যারিকেনের দল।

দ্বিতীয়ার্ধে পেনাল্টি থেকে হ্যারিকেইনের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ড। যোগ করা সময়ে দুর্দান্ত হেডে সমতা ফেরান ইয়েরি মিনা। অতিরিক্ত সময়েও ম্যাচে ছিল ১-১ সমতা। অবশেষে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জিতে উচ্ছ্বাসে ভাসে ইংল্যান্ড।

রদ্রিগেজহীন কলম্বিয়াকে অনেকটা ছন্নছাড়া মনে হয়েছিল তারপরও ইয়েরি মিনার গোলে প্রতিযোগিতায় ফিরে লাতিন অঞ্চলের দলটি। আক্রমণে ইংল্যান্ড এগিয়ে থাকলেও প্রথমার্ধে গোল করার তেমন ভালো সুযোগ আসেনি। বরং মাঠে উত্তেজনা ছড়িয়েছে দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে রেষারেষি। এমনই এক ঘটনায় জর্ডান হেন্ডারসনকে মাথা দিয়ে হালকা গুতো মেরে হলুদ কার্ড দেখে পার পেয়ে যান উইলমার বাররিওস।

দ্বিতীয়ার্ধে কেনের উপর অযথা চড়াও হয়ে পেনাল্টির উপহার দেন কার্লোস সানচেজ, দেখেন হলুদ কার্ড। ৫৭তম মিনিটে ওই স্পটকিক থেকে ঠাণ্ডা মাথায় টুর্নামেন্টে নিজের ষষ্ঠ গোলটি করেন এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ গোলদাতা কেন।

পাল্টা আক্রমণে ৮১তম মিনিটে একটি সুযোগ পেয়েছিলেন হুয়ান কুয়াদ্রাদো। কিন্তু সতীর্থের বাড়ানো বল ডি-বক্সে ডান দিকে ফাঁকায় পেয়ে উড়িয়ে মারেন জুভেন্টাসের এই মিডফিল্ডার। শেষ পর্যন্ত যোগ করা সময়ে সমতায় ফেরান মিনা। অতিরিক্ত সময়ে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে ম্যাচে উত্তেজনা ফেরে, কিন্তু স্কোরলাইন বদলায়নি।

ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। টাইব্রেকারে ইংল্যান্ডের রেকর্ড ভালো না হওয়ায় শঙ্কা থাকে সমর্থকদের মনে। তবে এবার ভুল করেনি ১৯৬৬ সালের চ্যাম্পিয়নরা। প্রথম শটে কলম্বিয়ার ফালকাও গোল করার পর ভুল করেননি ইংলিশ অধিনায়ক কেনও। দ্বিতীয় শট জালে জড়ান কুয়াদ্রাদো, জড়ান র‌্যাশফোর্ডও। লুইস মুরিয়েল তৃতীয় শটে পিকফোর্ডকে বোকা বানান। কিন্তু হেন্ডারসনের শট বাঁয়ে ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন অসপিনা।

কলম্বিয়ার উরিবের জোরালো শট লাগে পোস্টে। ট্রিপিয়ার গোল করে ফেরান সমতা। কার্লোস বাক্কার শট ঠেকিয়ে দেন পিকফোর্ড। মাথা ঠাণ্ডা রেখে বল জালে পাঠিয়ে ইংল্যান্ডকে শেষ আগে তোলেন এরিক ডায়ার।

অাগামী ৬ জুলাই থেকে শুরু হবে শেষ আটের খেলা । ইংল্যান্ড মাঠে নামবে ৭ জুলাই ।শেষ আটে আগামী শনিবার দিনের গতকাল প্রথম ম্যাচে জয়ী সুইডেনের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালে মাঠে নামবে ইংল্যান্ড। খেলাটি শুরু হবে ৭ জুলাই বাংলাদেশ সময় রাত ১২ টায়।

Filed in: খেলাধুলা

Comments are closed.